শিরোনাম
দেশবাসীকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রবাসী আবু রায়হান। দেশবাসীকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন পীরব ইউনিয়ন বিএনপি নেতা মতিয়ার রহমান। এম,এ হালিম তালুকদার, দেশবাসীকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সহ-সভাপতি, বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগ শহর শাখা, বগুড়া। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ রামপুরা থানা পক্ষ থেকে সমগ্র দেশবাসীকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ওমর ফারুক ! আলো ড্রিম ফ্যাশন পক্ষ থেকে সমগ্র দেশবাসীকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন আলেয়া আলো ! দেশবাসীকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন এশিয়ান টিভি সাংবাদিক আতাউর রহমান। শিবগঞ্জে নবজাতকে চুরির চেষ্টা ! প্রিয় ভাগ্নি আভামুনিকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা দিলেন ঢাকা থেকে ওমর ফারুক ! চন্দ্রগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশ পরিদর্শক ওসি’র উদ্যোগে যানজট মুক্ত চৌমুহনী চৌরাস্তা পিকেএসএফ-এর সহকারী মহাব্যবস্থাপক কর্তৃক দাবী মৌলিক উন্নয়ন সংস্থায় আরএমটিপি’র উপ-প্রকল্প কার্যক্রম পরিদর্শন। আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থা
মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৫৪ অপরাহ্ন

নৌকা-লাঙ্গলের ৩ প্রার্থী নিয়ে বগুড়ায় একি তালবাহানা !

আতাউর রহমান / ১৩৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২২ ডিসেম্বর, ২০২৩

বগুড়ায় সাতটি আসনের মধ্যে যে তিনটি আওয়ামী লীগ মহাজোটের শরিকদের জন্য ২০১৪ সাল থেকে ছেড়ে দিয়ে আসছে তার অন্যতম বগুড়া-২ (শিবগঞ্জ)। এ আসনে গত দুই সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সহায়তায় জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি শরীফুল ইসলাম জিন্নাহ বিজয়ী হন। এবার আসনটিতে আওয়ামী লীগ প্রথমে দলের শিবগঞ্জ উপজেলা সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র তৌহিদুর রহমান মানিককে প্রার্থী করার ঘোষণা দিলে নেতাকর্মীর মধ্যে উৎসাহ-উদ্দীপনা তৈরি হয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত জোটের সঙ্গে আসন ভাগাভাগির
কারণে মানিক মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারে বাধ্য হন।এর পরিবর্তে এবারও বগুড়া-২ আসনে জাপা নেতা জিন্নাহকেই সমর্থনের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ। কিন্তু বাস্তবতা হলো, শিবগঞ্জ আওয়ামী লীগের প্রায় কেউই জিন্নাহর জন্য এখনও মাঠেই নামেননি। উল্টো সভা করে স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপি নেত্রী (বহিষ্কৃত) বিউটি বেগমকে তারা সমর্থনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানা গেছে। জানা গেছে, আওয়ামী লীগ প্রার্থী মনোনয়ন প্রত্যাহারের পরও দলটির নেতাকর্মীরা জিন্নাহর পক্ষে মাঠে না নামায় তিনি হতাশ। এ নিয়ে জিন্নাহ সহায়তা চেয়ে ধরনা দেন আওয়ামী লীগ নেতাদের কাছে। কিন্তু আওয়ামী লীগ নেতারা সাড়া দেননি বলে অভিযোগ জিন্নাহর। তিনি বলেন, আমি আগেও যেভাবে সহযোগিতা চেয়েছিলাম, এবারও তাদের কাছে সহযোগিতা চেয়ে আসছি। কিন্তু কেউ আমার হয়ে নির্বাচনী মাঠে নামছেন না। তাই আমি আমার দলের নেতাকর্মীকে নিয়ে ভোট চাচ্ছি লাঙ্গলের জন্য। স্থানীয় সূত্র বলছে, গত বুধবার শিবগঞ্জ আওয়ামী লীগের আট নেতা ও সব ইউনিয়ন শাখার
বগুড়া-২ আসনে বিএনপির সাবেক নেত্রী বিউটিকে সমর্থন দিচ্ছে স্থানীয় আ’লীগ নেতাকর্মীরা উপজেলা সদরের কলেজ রোড এলাকায় একটি মতবিনিময় সভা করেন। সেখানে তৃণমূল নেতাকর্মীর মতামতের ভিত্তিতে বিএনপি নেত্রী (বহিষ্কৃত) স্বতন্ত্র প্রার্থী বিউটি বেগমকে সমর্থন দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। সভায় উপস্থিত দেউলি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি জাহেদুল ইসলাম বলেন, সভায় তৃণমূল নেতাকর্মীরা লাঙ্গলের বিরুদ্ধে তাদের ক্ষোভের কথা বলেন। দলীয় মনোনয়নবঞ্চিত হয়ে এ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন আরেক আওয়ামী লীগ নেতা আকরাম হোসেন। তাঁকে ছেড়ে কেন বিউটি বেগমকে সমর্থন দেওয়া হচ্ছে- এমন প্রশ্নে উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মেস্তাফিজার রহমান মোস্তা বলেন, ‘ওই সভায় আমি উপস্থিত ছিলাম না। তবে জানতে পেরেছি, তৃণমূল নেতাকর্মীর মতামতের ওপর ভিত্তি করেই বিএনপির সাবেক নেত্রী বিউটিকে সমর্থন দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। আকরাম হোসেন আওয়ামী লীগ নেতা হলেও তাঁর পক্ষে নেতাকর্মীরা সমর্থন দেননি।’একই অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বগুড়া-৪ (কাহালু- নন্দীগ্রাম) আসনেও। সেখানে মহাজোটের শরিক দল জাসদের প্রার্থী সাবেক এমপি রেজাউল করিম তানসেনের পক্ষে মাঠে নেই স্থানীয় আওয়ামী লীগ। এমনকি জাসদের একটি অংশও তানসেনের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন। সেখানেও বিএনপিদলীয় সাবেক এমপি স্বতন্ত্র প্রার্থী জিয়াউল হকের পক্ষে আওয়ামী লীগের অনেকে কাজ করছেন বলে জানা গেছে। নন্দীগ্রাম উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘নৌকা যাঁকে দেওয়া হয়েছে, তিনি এর যোগ্য নন। আমরা নৌকার প্রার্থী থেকে দূরে আছি। কারণ, তিনি নির্বাচিত হয়ে আমাদের ভুলে যান, যোগাযোগ রাখেন না।’ উপজেলা জাসদের সাবেক সভাপতি কামরুজ্জা- মান বলেন, ‘মহাজোটের নাম ভাঙিয়ে নির্বাচিত হয়ে এমপি তানসেন নানা দুর্নীতির সঙ্গে যুক্ত হয়ে পড়েন। আমি নির্বাচনে কারও পক্ষে কাজ করছি না।’ বগুড়া-৩ আসনে বেকায়দায় পড়েছেন জাপা প্রার্থী এমপি নুরুল ইসলাম তালুকদারও। সেখানে আওয়ামী লীগ শুরুতে মনোনয়ন দিয়েছিল দলের আদমদীঘি উপজেলা সভাপতি সিরাজুল ইসলাম রাজুকে। জাপার সঙ্গে আসন ভাগাভাগির পর রাজু মনোনয়ন প্রত্যাহার করলেও স্বতন্ত্র প্রার্থী আছেন তাঁর ছেলে উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়াবিষ- য়ক সম্পাদক খান মোহাম্মদ সাইফুল্লাহ মেহেদী। এ ছাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ সহসভাপতি অজয় কুমার ও বঙ্গবন্ধু প্রজন্ম লীগ কেন্দ্রীয় সভাপতি ফেরদৌস স্বাধীন ফিরোজও সেখানে স্বতন্ত্র হিসেবে নির্বাচন করছেন। ফলে দলের নেতাকর্মীরা এখন কার্যত ভাগ হয়ে গেছেন স্বতন্ত্র তিন প্রার্থীর পক্ষেন এমনকি খোদ জাপা নেতাকর্মীরাই এমপি নুরুল ইসলামকে সমর্থন দিচ্ছেন না। দুপচাচিয়া উপজেলা জাপার সাবেক সভাপ ওবায়দুর রহমান বলেন, ‘আমরাই নাই লাঙ্গ প্রার্থীর পক্ষে, অন্যরা কেমনে থাকবে?


এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ