শিরোনাম
চন্দ্রগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশ পরিদর্শক ওসি’র উদ্যোগে যানজট মুক্ত চৌমুহনী চৌরাস্তা পিকেএসএফ-এর সহকারী মহাব্যবস্থাপক কর্তৃক দাবী মৌলিক উন্নয়ন সংস্থায় আরএমটিপি’র উপ-প্রকল্প কার্যক্রম পরিদর্শন। আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থা অভয়নগরে মা’র লাশ বাসায় রেখে এসএসসি পরীক্ষা দিল ছেলে বগুড়ার কৃতি সন্তান রামপুরা থানার সাব ইন্সপেক্টর মুমিনুর রহমানকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান। বগুড়া গরিব দুঃখীদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ। দাবী’ নওগাঁয় পিকেএসএফ প্রতিনিধির উপস্থিতিতে তরুণ উদ্যোক্তাদের অর্থায়ন ও প্রশিক্ষণ বিষয়ক অগ্রগতি আলোচনা সভা।  পিকেএসএফ ও বিশ্বব্যাংক প্রতিনিধি দলের দাবী মৌলিক উন্নয়ন সংস্থায় রেইজ প্রকল্প পরিদর্শন রাজশাহী বাঘার গৌরাঙ্গপুর নতুন বছরের প্রথম দিনে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা পেল নতুন বই!  যারা শেখ হাসিনার দেয়া নৌকাকে অস্বীকার করছে, তারা বিশ্বাসঘাতক-মীরজাফর- বাদশা জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে নতুন বছরে নতুন বই বিতরণ উৎসব অনুষ্ঠিত। 
মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:০৪ অপরাহ্ন

কলকাতার মেনোকা সিনেমা হলে শুভ মুক্তি পেল, শাহারুকের ডাংকি ।

শম্পা দাস ও সমরেশ রায় , কলকাতা / ৫৬ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২২ ডিসেম্বর, ২০২৩

আজ একুশে ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার , সকাল ১০ টা থেকে সিনেমা হল তোলপাড়, শাহারুক ফ্যানেদের , শাহারুকের বই মানে একটা আলাদা উন্মাদনা দেখা যায় সিনেমা হলে, শাহারুক ফ্যানেরা প্রতিবারের ন্যায় ,এবারও ঘোড়ার গাড়িতে শাহারুকের ছবি নিয়ে প্রসেশন করে সিনেমা হলের সামনে আসে, এরপর শাহরুখের ছবিতে মালা পরিয়ে, পুরোহিত দিয়ে পুজো করিয়ে , দুধ দিয়ে স্নান করানো এবং ডাব ফাটিয়ে শান্তির বাণী ছড়ান, শুধু তাই নয়,

শাহারুকের একটি কেক কেটে শুভ জন্মদিন পালন করলেন। তার সাথে সাথে চলে নাচ গান শাহরুখের ড্যামি অভিনয় এবং রংবেরঙের আবির নিয়ে উল্লাস, আগের বারো ঠিক এইভাবে উল্লাসে ফেটে পড়েছিল সারা কলকাতা সিনেমা হল গুলি জবানে, আর আজও সবার মুখে একটা কথাই শাহারুখ শাহারুখ, কিংরাজ শাহারুখ, সকাল থেকেই সিনেমা হলে টিকিটের জন্য লাইন পড়ে যায়, বেশ কয়েকটি হলে , তেমনি মেনোকা হলেও লাইনে দাঁড়িয়ে সিনেমা প্রেমীরা ,কখন শুরু হবে , কিন্তু অনেকেই প্রথম শোয়ে টিকিট পাননি। তারা অপেক্ষা করেন দ্বিতীয় শোতে টিকিট পাওয়ার জন্য। তারা বলেন আজ আমরা এই বইটা দেখে তবে বাড়ি ফিরব, যারা হলে ভেতরে ঢুকেছেন এবং সিনেমাটা দেখছেন, ভেতরে একইভাবে উল্লাস, মুহূর্তে মুহূর্তে একটাই নাম কিংরাজ শাহারুক, সিনেমা প্রেমী ও শাহরুক প্রেমী, এবং শাহারুকের ফ্যানরা, সারা হলের ভিতর শেষ পর্যন্ত উল্লাস করলেন ও নৃত্য করলেন। তবে দর্শকদের কাছে জানা গেল, বইটা একবার দেখে সম্পূর্ণ বোঝা যাবে না ,তাকে বারবার দেখতে হবে , তবেই হৃদয়ে ধাক্কা খাবে এবং তার মানে বুঝতে পারবেন। অসাধারণ বইয়ের কাহিনী যা দর্শকদের চোখে জল আনিয়ে দিয়েছে। আর শাহারুক নিয়ে কোন কথাই হবে না, এবং পরিচালককে সিনেমা প্রেমীরা অশেষ ধন্যবাদ জানালেন, সবার রাজা, শাহারুকের অসাধারণ তার অভিনয়। প্রতিমুহূর্তকে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে ,আজও প্রতিটি সিনেমা মনে দাগ কেটেছে। কলকাতায় মেনোকা হল ছাড়াও, আরো বেশ কয়েকটি হলে একই সাথে শুরু হল শাহারুক অভিনীত এই ডাংকি।


এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ